পিসির শাট ডাউন / স্লীপ মুড / হাইবারনেট মুড!

Abdul AwalBangla, TechnologyLeave a Comment

আজ ল্যাপটপ আর এক্সটার্নাল মনিটরকে এমনভাবে সেট করলাম যাতে টেবিলে পর্যাপ্ত যায়গা বাকী থাকে। কিন্তু সেট করার পর দেখা গেলো ল্যাপটপের প্লেসমেন্ট এমন হয়েছে যে কোন কারনে শাট ডাউন করলে এরপর অন করার জন্য পুরো সেটিং নাড়াতে হবে।
এর সল্যুশন হিসেবে ভাবলাম কীবোর্ড দিয়েই অন করার ব্যবস্থা করা যায় কিনা ল্যাপটপ, কোন এক সময় এমন একটা সেটিং চোখে পড়েছিলো।
যাই হোক একটু খোজাখুজি করে পেলাম যে স্লীপ মুড হয়ে থাকলে কীবোর্ডের মাধ্যমেই জাগিয়ে তোলা যায়। তারপরের ব্যাপার হল শাটডাউন আর স্লীপ বা হাইবারনেটের মধ্যে পার্থক্য কতটুকু।
কিছুক্ষন পড়াশোনা করার পর পিসি শাটডাউন না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলাম। দেখে নেয়া যাক কেন আর এই ৩ টা জিনিসের মধ্যে পার্থক্য আসলে কি?
১। স্লীপঃ ল্যাপটপ যখন স্লীপ মুডে যায়, তখন খুবই অল্প পরিমানে পাওয়ার ইউজ করে। স্লীপ মুডে পিসির বর্তমান অবস্থা (রানিং প্রোগ্রাম, ফাইল এসব) র‍্যামের মধ্যে সংরক্ষিত থাকে। আর র‍্যামকে অন রাখার জন্য যে অল্প পরিমান পাওয়ার প্রয়োজন হয় সেটাই ইউজ হয়। স্লীপ মুড থেকে পিসি অন করলে যে অবস্থায় ছিলো ঠি সে অবস্থায়ই পুনরায় ওপেন হবে। এক্ষেত্রে কীবোর্ডের কোন একটা বাটনে ক্লিক করেই পিসিকে জাগিয়ে তোলা যায়।
২। হাইবারনেটঃ হাইবারনেট স্লীপ এর মত এক্সাক্ট সেইম কাজ করে তবে এক্ষেত্রে পিসির বর্তমান অবস্থা র‍্যামের বদলে হার্ডডিস্কে একটা ডাম্প ফাইলে সংরক্ষিত হয়, যার কারনে এতে পাওয়ার ইউজ হয় না। হাইবারনেট থেকে পিসি অন করলেও ঠিক আগের অবস্থাতেই পাওয়া যাবে। তবে এক্ষেত্রে জাগিয়ে তোলার জন্য পাওয়ার বাটন লাগবে, কীবোর্ডে হবে না।
৩। শাট ডাউনঃ শাট ডাউন মানে হলো ওপেন করা সকল জিনিস অফ করে পিসির পাওয়ার সম্পূর্ন অফ করা। এক্ষেত্রে পাওয়ার বাটন দিয়েই পিসি অন করতে হবে। আর অফ থাকা অবস্থায় কোন রকম পাওয়ার ইউজ হবে না।
এখন একটা প্রশ্ন আসে বা আমাদের অনেকেরই ধারনা, প্রতিদিন অন্তত একবার শাট ডাউন করা উচিত পিসি। কিন্তু বিষয়টা তেমন না। চাইলে স্লিপ মুড বা হাইবারনেট দিয়েই ইউজ করা যায়। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে রিবুট দিতেই হয়, যেমন উইন্ডোজ আপডেট। এছাড়াও ২-১ দিন পর পর একটা রিবুট দেয়াই যায়  😉
Abdul Awalপিসির শাট ডাউন / স্লীপ মুড / হাইবারনেট মুড!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *